Tuesday, December 7, 2021
0 0
Homeশীর্ষ খবরজাকারবার্গ সমীপে খোলা চিঠি : দুনিয়া জুড়ে মুসলিম বিদ্বেষের ইঞ্জিন ফেসবুক

জাকারবার্গ সমীপে খোলা চিঠি : দুনিয়া জুড়ে মুসলিম বিদ্বেষের ইঞ্জিন ফেসবুক

Read Time:11 Minute, 22 Second


মেহদি হাসান, দি ইন্টারসেপ্ট:

প্রিয় মার্ক জাকারবার্গ,
আপনারকী হলো?
গত ২০১৫সালে ডিসেম্বরে আপনি মুসলিমবিদ্বেষের বিরুদ্ধে জোরেশুরে গর্বের সাথেবলেছিলেন, আমি আমারকমিউনিটির এবং সারা দুনিয়ারমুসলমানদের সমর্থনে আমার কণ্ঠস্বরওযুক্ত করতে চাই, আপনি তখন একটিফেসবুক পোস্টে লিখেছিলেন, তার দুই দিন পর রিপাবলিকানরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্র্রাম্পদেশে মুসলমানদের প্রবেশ পুরোপুরিএবং সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করার ঘোষণাদিয়েছিলেন আপনি আরো লিখেছিলেন, প্যারিসহামলার পর মুসলিমরা অন্যেরকাজের শাস্তি নিয়ে কতটাভীতির মধ্যে আছে, আমি কেবলতা কল্পনা করতে পারি
এরপরনিউ ইয়র্ক টাইমসের শিরোনামকী হয়েছিল মনে আছে? ফেসবুকেরমার্ক জাকারবার্গ মুসলিম ব্যবহারকারীদের আশ্বস্ত করলেন
যদিওএখন আমরা ২০১৯ সালেরডিসেম্বরে আছি চার বছর পর এখন আপনিএবং আপনার ফেসবুক মুসলমানদেরআশ্বস্ত করার বদলে বরং আমাদেরবিরুদ্ধে ঘৃণা গোঁড়ামিবাড়ানোর কাজ করছেন আপনিএখন অভিনেতা সাচা ব্যারনকোহেনের ভাষায় ইতিহাসেরসবচেয়ে বড় প্রোপাগান্ডার মেশিন হিসেবে আপনারফেসবুককে ব্যবহার করতে দিচ্ছেন, যা পৃথিবীরসবচেয়ে দুর্দশাগ্রস্ত কয়েকটিমুসলিম কমিউনিটি লক্ষ্যবস্তুতে পরিণতকরতে এবং শাস্তি দিতেব্যবহৃত হচ্ছে
শুরুতেই বলে নিই, মার্ক, একটি সত্যিকারেরগণহত্যায় জড়িয়ে পড়তে কেমনঅনুভূতি হয়?
আমি অবশ্যইমিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যারকথা বলছি ২০১৮সালের মার্চ মাসে মিয়ানমারেজাতিসংঘের স্বাধীন আন্তর্জাতিক তদন্তমিশনের চেয়ারম্যান মার্জুকি ড্যারুসম্যানসাংবাদিকদের বলেছিলেন যে আপনাদেরমতো সামাজিক মাধ্যম কোম্পানিগুলোসহিংসতায় নির্ধারক ভূমিকা পালন করছিলো, এবং বিদ্বেষ, মতানৈক্য সহিংসতার পর্যায়ে উল্লেখযোগ্য অবদানরাখছিল
মিয়ানমারেজাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি ইয়াংহিলি এর সাথে যোগ করেন, মিয়ানমারেসবকিছুই হয়েছিল ফেসবুকের মাধ্যমে, আমারভয় হচ্ছে ফেসবুক এখন পাশবিকচরিত্রে পরিণত হয়েছে, যদিও মূলতফেসবুকের এরকম কোন অভিপ্রায়ছিল না
মার্ক, আপনিএই সবকিছুই জানেন সত্যিবলতে কী, আপনার কোম্পানি সেটাস্বীকারও করেছে ২০১৮সালের নভেম্বরে আপনার নিজেরউৎপাদন নীতি ব্যবস্থাপক অ্যালেক্সওয়ারোফকা স্বীকার করেছেন যে, আপনিএবং আপনার সহকর্মীগণ এই প্লাটফর্মকেমিয়ানমারে বিভক্তির উসকানি প্রদানএবং অফলাইন সহিংসতাকে প্ররোচিতকরা থেকে বিরত রাখতে যথেষ্ট দায়িত্বপালন করেন নি
আর আপনিতখন কী করেছেন? ওয়ারোফকা দাবিকরছেন, ফেসবুক মিয়ানমারে হেট স্পিচচিহ্নিত করার প্রোঅ্যাক্টিভ ডিটেকশনেরউন্নয়ন করেছে যদিও মিয়ানমারেরপ্রতি বিশেষ নজর রাখাঅলাভজনক মানবাধিকার সংস্থা ফর্টিফাইরাইটসের প্রতিষ্ঠাতা মথি স্মিথএর সাথে দ্বিমত করে আমাকেবলেন: ফেসবুকেরঅনেক কিছুই করার আছে হ্যাঁ, আপনার কোম্পানি মিয়ানমারের জন্যশতাধিক কন্টেন্ট রিভিউয়ার নিয়োগকরেছে, কিন্তু দেশে ২০ মিলিয়নেরওবেশি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট রয়েছে স্মিথ যেমনটা বলছেন, এখন অবধিযে সকল উদ্যোগ নেওয়াহয়েছে, তা প্লাটফর্মটির অপব্যবহারসামলানোর জন্য যথেষ্ট নয়
তিনিআরো বলছিলেন, জ্যেষ্ঠনেতৃত্ব পরিস্থিতির গুরুত্ব পুরোপুরিবুঝতে সক্ষম হয়েছেন কিনা, তা এখনোস্পষ্ট নয় কোম্পানিরউচিত রোহিঙ্গাদের যে ক্ষতিহয়েছে, সেটা ক্ষতিপূরণ দেওয়া এবং অন্যান্যউদ্যোগ গ্রহণের চিন্তা করা
ভারতেরমুসলিম সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সম্পর্কেকী বলবেন? মার্ক, তাদের পরিণতিরপরও কি আপনি সঠিকঅবস্থায় আছেন? যদি না হয়, কেন নয়? অক্টোবরেঅলাভজনক অ্যাক্টিভিস্ট নেটওয়ার্কআভাজ তাদের এক প্রতিবেদনেভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলী প্রদেশআসামে মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষছড়ানোর মেগাফোন বলে ফেসবুকেরবিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে  যে আসামের প্রায়দুই মিলিয়ন মানুষের (যাদের বেশিরভাগই মুসলিম) নাগরিকত্ব প্রধানমন্ত্রীনরেন্দ্র মোদীর কট্টর ডান হিন্দুজাতীয়তাবাদী সরকার বাতিল করেছে
গত জুনেভাইস নিউজের সংবাদ অনুসারে, সাউথএশিয়ান হিউম্যান রাইটস গ্রুপইকুয়ালিটি ল্যাবের অপর একটিপ্রতিবেদন বলছে: ভারতেফেসবুকের ইসলামবিদ্বেষী পোস্টগুলোইহেটস্পিচের সবচেয়ে বড় উৎস, যা মোট ধরনেরকন্টেন্টের ৩৭ শতাংশ
আপনি বিষয়ে কিছুই বলেন নি, বা কিছুইকরেন নি যদিওআপনি মো!দির সাথে বারবারসাক্ষাৎ করেছেন ঘটনাক্রমেতিনিই সবচেয়ে বেশি ফেসবুকফলোয়ারের অধিকারী বিশ্বনেতা! আপনি আপনারমাবাবাকেতার সাথে পরিচয় করিয়েদিয়েছেন আমি অবাকহই: মোদি সরকারের কাশ্মীর লকডাইনেরপ্রেক্ষিতে ফেসবুক কর্তৃক যার হোয়াটসঅ্যাপঅ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভ করে দেওয়াহয়েছে, আপনি কী এমন কোন মুসলিমকেআপনার মাবাবার সাথে পরিচয়করিয়ে দিয়েছেন?
শ্রীলঙ্কার মুসলিমদের কী অবস্থা? কলম্বোভিত্তিক বিভিন্ন সংগঠণ যখন আপনারকোম্পানিকে বিভিন্ন ইসলাম বিদ্বেষীভিডিও সম্পর্কে জানিয়েছিল, এসব পোস্টেরমধ্যে একটিতে এরকম ঘোষণাওছিল, সকল মুসলিমকেহত্যা করো, এমনকি একটিশিশুকেও বাঁচিয়ে রেখো না নিউ ইয়র্ক টাইমস জানাচ্ছে সব পোস্টসম্পর্কে একই উত্তর এসেছিল: এই কন্টেন্টফেসবুকের স্ট্যান্ডার্ড লংঘনকরেনি আপনার প্ল্যাটফর্ম ব্যবহারকরে সকল শ্রীলঙ্কান মুসলিমকেহত্যার আহ্বান, আপনাকে একটুওভাবায় নি? আপনি একটুও বিচলিতহন নি?
আমরাযেন চীনের উইঘুরমুসলিমদের কথা ভুলেনা যাই এক মিলিয়নেরওবেশি মানুষকে জিনজিয়াং প্রদেশেকনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে বন্দী করে রাখাহয়েছে, যেখানে তাদেরকে প্রহার করা হচ্ছে, শাস্তিদেওয়া হচ্ছে, ধর্ষণ করা হচ্ছে এমনকি বাজফিড নিউজ গত আগস্টেপ্রতিবেদন বের করেছে, কীভাবেচীনের সরকার মালিকানাধীন সংবাদমাধ্যমগুলো ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে উইঘুরদেরবিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়েবিভ্রান্তির সৃষ্টি করছে
আপনিকি ফেসবুক দিয়ে বিশেষজ্ঞরাযেটাকে বলছেন সাংস্কৃতিকগণহত্যা সেটার প্রচারণা করে খুশিআছেন?
এরপর আসেন যুক্তরাষ্ট্রের কথায় ২০১৮ সালের মে মাসে সাউদার্ন পোভার্টি সেন্টারের একটি প্রতিবেদনে বিশ্লেষণ করা হয় যে, কীভাবে মুসলিমবিদ্বেষী কন্টেন্ ফেসবুকে জায়গা পাচ্ছে রিভিলে সাম্প্রতিক একটি প্রতিবেদনে এসেছে, ফেসবুক শ্বেত জাতীয়তাবাদী সংগঠনসমূহের সাথে জড়িত গোষ্ঠীগুলোকে রিমোভ করছে … … সামাজিক মাধ্যম এখনো মুসলিমদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ায়, DEATH TO ISLAM UNDERCOVER. এর মতো এমন গোষ্ঠীগুলোকে জায়গা দেওয়া অব্যহত রেখেছে
মার্ক, আপনি সব কিছুই জানেন আপনি অজ্ঞতার দোহাই দিতে পারেন না
আবারো বলছি, মার্ক আপনি সবই জানেন আপনি অবশ্যই জানেন আপনি অজ্ঞতার দোহাই দিতে পারেন না আপনি সম্প্রতি নাগরিক অধিকার গোষ্ঠী মুসলিম অ্যাডভোকেটসের ফারহানা খেরাকে আপনার গৃহে আতিথেয়তা আতিথেয়তা করেছেন তিনি বললেন যে তিনি আপনাকে জানিয়েছেন, “যুক্তরাষ্ট্র এবং বিশ্বজুড়ে ফেসবুক কীভাবে মুসলিমদের কষ্টের কারণ হচ্ছে সে সম্পর্কেতার ব্যাক্তিগত সাক্ষ্য আপনাকেএকটুও প্রভাবিত করেনি?
এরপর, এর আগে আপনি ফক্স নিউজের উপস্থাপক টাকার কার্লসনকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন, যিনি একদা ইরাকিদেরকে অর্ধ শিক্ষিত আদিম বানরবলতেন, আপনি আরো আতিথেয়তা করেছেন ডেইলি ওয়্যারের প্রতিষ্ঠাতা বেন শাপিরোর, যিনি মিথ্যাভাবে দাবি করেছেন যে, পৃথিবীর বেশির ভাগ মুসলিমেই উগ্রপন্থী গতমাসে আপনি রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে গোপনীয় নৈশভোজ করেছেন, এবং সেখানে কী আলোচনা হয়েছে, তা প্রকাশ করতে অস্বীকার করেছেন (চার বছরে কত পার্থক্য হতে পারে!)
–––––––––––––––––––––––––––––––––
দি ইন্টারসেপ্টে মেহদি হাসানের মূল লেখাটি Dear Mark Zuckerberg: Facebook Is an Engine of Anti-Muslim Hate the World Over. Dont You Care শিরোনামে প্রকাশিত হয়েছে ভাষান্তর কর্তৃক সংক্ষেপে অনূদিত, ছবি সংশ্লিষ্ট পাতা থেকে সংগৃহীত


Happy

Happy

0 %


Sad

Sad

0 %


Excited

Excited

0 %


Sleepy

Sleepy

0 %


Angry

Angry

0 %


Surprise

Surprise

0 %

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -
Google search engine

Most Popular

Recent Comments